img

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস

মোট আক্রান্ত৩৫৩,৮৪৪

সুস্থ২৬২,৯৫৩

মৃত্যু৫,০৪৪

বিশ্বে করোনাভাইরাস

মোট আক্রান্ত৩১,৮৮২,১৬৮

সুস্থ২৩,৪৭৭,৪৮৪

মৃত্যু৯৭৭,২৩১

নড়াইলে মেয়ের আত্মহননের তদন্তপূর্বক দোষিদের শাস্তির দাবি করেছেন এক বাবা

image

নিজস্ব প্রতিবেদক : নড়াইলের দেবভোগ গ্রামের মিতা বিশ্বাসের আত্মহননের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তার বাবা মনি মোহন বিশ্বাস। প্রেমিকের প্রতারণা শিকার হয়ে তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে তিনি মনে করছেন। ঘটনার সত্যতা তদন্তসহ দোষিদের শাস্তির দাবিতে পুলিশ সুপারের কাছে এক লিখিত আবেদন করেছেন। মনি মোহন বিশ্বাস অভিযোগে বলেছেন, গত ৩ আগস্ট তার বড় মেয়ে মিতা বিশ্বাস গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। ওই দিনই স্থানীয় শেখহাটি পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা বাড়িতে হাজির হয়ে লাশ ময়না তদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। ওই লাশের ময়না তদন্ত না করে পরদিন লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন করে। এ ঘটনার পর মৃত মেয়ের ঘর পরিস্কার করার সময় ঘরে লোকানো অবস্থায় একটি মোবাইল ফোন পাই। যে ফোন আমি কিম্বা আমার মেয়ে কেউই কেনেনি। ফোনে একই গ্রামের ফুল দেবের ছেলে পলাশ দেব’র সাথে মোবাইল ফোনের কথাকোপনের রেকর্ড পাই। পরবর্তীতে জানতে পারি ফোনটি পলাশ দেব আমার মেয়েকে কিনে দিয়েছে। যার নং ০১৪০৯০৭২৯৮০। তিনি আবেদনে আরও বলেছেন, প্রতিবেশি শিপ্রা ভদ্র তার মেয়েকে ফুসলিয়ে নিয়ে পলাশ দেবের সাথে মেলামেশা করার সুযোগ করে দিতো। আর তার ভিডিও শিপ্রা ভদ্রের সহযোগিতায় সত্যজিত হালদার ভিডিও ধারণ করতো। পরবর্তীতে এই ভিডিও দেখিয়ে তার মেয়েকে জিম্মি করে। আর এভাবে তার মেয়েকে আত্মহননের পথে এগিয়ে দিয়েছে পলাশ দেব, শিপ্রা ভদ্র ও সত্যজিৎ হালদার। তাদের কারণেই মিতা বিশ্বাস আত্মহত্যা করেছে। বর্তমানে তারা সকলে পলাতক রয়েছে।